অন্যান্য

বেনাপোল ফিলিং স্টেশনের বিক্রিত পেট্রোলে কেরোসিন মিশ্রন থাকার অভিযোগ!

বেনাপোল ফিলিং স্টেশনের বিক্রিত পেট্রোলে কেরোসিন মিশ্রন থাকার অভিযোগ!

মোঃ নজরুল ইসলাম, বিশেষ প্রতিনিধি,
যশোরের বন্দরনগরী বেনাপোলের বলফিল্ড এলাকায় অবস্থিত বেনাপোল ফিলিং স্টেশনের বিক্রিত পেট্রোল পরিমাপে কম ও কেরোসিনের মিশ্রন থাকার একাধিক অভিযোগ মিলেছে। ভূক্তভোগীরা জানান ভেজাল পেট্রোল যানবাহনে পুরে যন্ত্রাংশের ক্ষতি সহ অর্থনৈতিক ক্ষতির সন্মুখীন হচ্ছেন তারা।বিষয়টি তারা স্থানীয় বেনাপোল পোর্টথানা,শার্শা উপজেলা প্রশাসন কে অবহিত করলেও পাম্প কর্তৃপক্ষ দেদারসে বিক্রি করছেন কেরোসিন মিশ্রিত তেল।ঘটনার তথ্য সুত্রে দূর্গাপুর গ্রামের জাহিদুল ইসলাম জানান,গত ২৪ অক্টোবর বিকালে তার নিজিস্ব মোটর সাইকেলে তেল নেওয়ার সময় কেরোসিনের গন্ধ পায়।বিষয়টি তিনি মটরসাইকেল মিস্ত্রি কে জানালে তিনি বলেন দ্রæত তেল বদলে ফেলতে না হলে ইঞ্জিনের সমস্যা ঘটবে।বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য পুনরায় বেনাপোল ফিলিং স্টেশন হতে রাতে পানির বোতলে করে ১০০টাকার পেট্রোল ক্রয় করেন। আবারো ক্রয় কৃত পেট্রোল হতে কেরোসিনের গন্ধ বের হলে নজেল ম্যানের নিকট কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন এটি আপনারা পাম্প মালিক কে বলেন। বেনাপোলের ভবেরবেড় গ্রামের সুজন,সাদীপুর গ্রামের রিপন,ছোট আঁচড়া গ্রামের সাইবুর রহমান সহ একাধিক ক্রেতা বেনাপোল ফিলিং স্টেশনের ক্রয় কৃত পেট্রোলে কেরোসিনের গন্ধ থাকার কথা নিশ্চিত করে দ্রæত প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেন।অভিযোগ বিষয়ে মুঠো ফোনে লীজে নেওয়া বেনাপোল ফিলিং স্টেশনের বর্তমান পরিচালনাকারী/মালিক মোঃ সেলিম জানান,যমুনা অয়েল কোম্পনীর ডিপো হতে তেল ক্রয় করি।যা এনেছি তা বিক্রি করছি এবং আমি কোন প্রকার মিশ্রন করিনা।বিষয়টি নিয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তর,যশোর জেলার সহকারী পরিচালক ওয়ালিদ বিন হাবিব জানান,মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি বি এসটি আই কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রন করেন তাই তাৎক্ষনিক ভাবে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মারফত বিষয়টি সমাধানের চেষ্ঠা করছি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Close
Close